সোমবার, ১৭ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
আজ সোমবার | ১৭ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

মহেশখালীতে ১২ নং পাহাড়ী মৌজার জায়গা দখলে নিতে দখলদারদের নতুন ফাঁদ

শনিবার, ০১ মে ২০২১ | ৪:১৮ অপরাহ্ণ | 149Views

মহেশখালীতে ১২ নং পাহাড়ী মৌজার জায়গা দখলে নিতে দখলদারদের নতুন ফাঁদ

মহেশখালী সংবাদদাতা:

চট্টগ্রাম উপকূলীয় বনবিভাগ চট্টগ্রামের আওতাধীন মহেশখালী রেঞ্চের ১২ নং পাহাড়ী মৌজার জায়গা দখলদারদের বন্দোবস্তি দেয়নি সরকার। যার কারণে ১২ নং পাহাড়ী মৌজার জায়গা এখনোও মহেশখালী বনবিভাগের আওতাধীন রয়েছে বলে জানিয়েছেন বনবিভাগের লোকজন। বন্দোবস্তি দিয়েছে প্ররোচণা করে বনের জায়গা দখল করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে ভূমিদস্যুরা এমন অভিযোগ বনবিভাগের।

তবে উপজেলার শাপলাপুর ইউনিয়নের একজন দখলদার ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, বনও পরিবেশ মন্ত্রণালয়, প্রধান বন সংরক্ষক, চট্টগ্রাম বিভাগীয় বনকর্মকর্তা উপকূলীয় বনবিভাগসহ বিভিন্ন দপ্তরে বন্দোবস্তির জন্য লিখিত আবেদন করেছেন।

স্থানীয় পরিবেশবাদী সংগঠনের নেতারা জানিয়েছেন, দেশের নাগরিক হিসাবে যে কোন ব্যক্তি সরকারের কাছে আবেদন করতে পারে। তবে আবেদন খতিয়ে দেখে নির্দেশ দিবে সরকার। কিন্তু এর আগে বনবিভাগের জায়গা ভুমিহীন নাম ব্যবহার করে দখলদারদের কাছে বন্দোবস্তি দিয়েছে বলে প্রচার করে বেড়াচ্ছে একটি দালাল চক্র । যেটি আইনগত অপরাধ। আর বনের জায়গা দখল করে বনের পাহাড় কেটে বসতি নিমার্ণ করা পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

জানাগেছে, সরকারের পক্ষ থেকে পাহাড়ি জায়গা বন্দোবস্তি দিয়েছে বলে এমন কথা প্রচার করে গ্রামের সহজ সরল লোকজনের সাথে প্রতারনা করে আর্থিক সুবিধা নিতে মাঠে নেমেছে একটি এলাকা ভিত্তিক দালাল চক্র।

এ ব্যাপারে মহেশখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা অভিজিত বড়ুয়া বলেন, সংরক্ষিত ১২ নং পাহাড়ী মৌজার জায়গা বন্দোবস্তি দেয়নি সরকার।

এব্যাপারে কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য অনুরোধ রইল। আর বনের জায়গা বনবিভাগের রয়েছে। তিনি বন্দোবস্তি দিয়েছে বলে প্রচার যারা করতেছে এটি বনবিভাগের ভাবমূর্তি নষ্ট করার শামিল বলেও জানান।

-Advertisement-
Recent  
Popular  

Our Facebook Page

-Advertisement-
-Advertisement-