সোমবার, ১৭ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
আজ সোমবার | ১৭ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

খবরের শিরোনাম ” স্টোকে নব বিবাহিত বরের মৃত্যু”! কারন হিসাবে ক্ষতিকারক যৌন উত্তেজক মেডিসিন নয় তো!

শনিবার, ২৭ জুন ২০২০ | ১১:৪৫ পূর্বাহ্ণ | 183Views

খবরের শিরোনাম ” স্টোকে নব বিবাহিত বরের মৃত্যু”! কারন হিসাবে ক্ষতিকারক যৌন উত্তেজক মেডিসিন নয় তো!

খবরের শিরোনাম ” স্টোকে নব বিবাহিক বরের মৃত্যু”! কারন হিসাবে ক্ষতিকারক যৌন উত্তেজক মেডিসিন নয় তো!

ডা: মুহাম্মদ ওমর ফারুক:

অনেক সময় নিউজ শিরোনামে দেখা যায় “বিয়ের রাতে স্টোকে বরের মৃত্যু” অথবা বিয়ের কয়েক দিনের মধ্যে নব বিবাহিতের মৃত্যু। সাধারণত এই ধরনের মৃত্যু গুলোর রহস্য জনসন্মুখে আসে না,কিন্তু ছোট্ট একজন চিকিৎসক হিসাবে আমার একটি অনুমান মুলক ধারনা আছে,হয়তো গোপনীয়তার কারনে বিষয়টি জনসন্মুখে আসে না।বিষয়টি হল-“যৌন উত্তেজক মেডিসিন”সেবনে মৃত্যু।

বর্তমান বাজারে  আলু ,চাল,ডাল,পটলের চেয়েও বেশি সহজ লভ্য ও বিক্রীত জিনিসটি হল যৌন উত্তজক মেডিসিন।যদিও নামে এগুলো যৌন উত্তেজক মেডিসিন হলেও প্রকৃত পক্ষে এগুলো কোন বৈধ মেডিসিনই নয়,সাধারণ মানুষকে ধোকা দেওয়ার জন্য সাময়ীক উত্তেজনা সৃষ্টিকারী এক ধরনের ক্যামিকেল মিশ্রণ,যা মানুষের জন্য ক্ষতিকর এমনকি মৃত্যুও হতে পারে। আর একটি মজার বিষয় হচ্ছে-এধরনের মেডিসিন গুলোর ব্যবহার,ক্রয়-বিক্রয় খুবই গোপনীয়তার সাথে হয়ে থাকে।কেউ কাউকে তা প্রকাশ করে না,সেবনকারীরাতো একদমই না।

আমার কেন এমনি ধারনা হলঃ

আমি বেশ কয়েকজন নববিবাহিত ব্যক্তির বিপি চেক করতে গিয়ে দেখেছি ওদের বিপি অনেক উচ্চ।উচ্চ হওয়ার কারন জানতে চেয়েও তেমন কোন কারন জানা যায়নি।আগে বিপি বৃদ্ধি থাকত কিনা জানতে চাইলেও বলে “না স্বাভাবিক ছিল”।পরে অনেকে স্বীকার করে নেয়“যৌন উত্তেজক” সেবনের কথা। আমার ধারনা মতে এধরনের যৌন উত্তজক মেডিসিন সেবনের কারনে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া অস্বাভাবিক বৃদ্ধি হয়ে এধরনের স্টোক গুলো হয়ে থাকে,যা আমাদের বা পরিবারের কাছে গোপনই থেকে যায়।

তাহলে কি এর কোন সমাধান নেই?-

অবশ্যই সমাধান আছে। মানুষের জৈবিক চাহিদা যেহেতু আছে,সেহেতু এই চাহিদা পুরণে স্বাভাবিক, বৈধ ও প্বার্শপ্রতিক্রিয়হীন সমাধানও আছে।সেক্ষেত্রে আপনাকেও অবশ্যই যেতে হবে বৈধ চিকিৎসকের কাছে,যিনি আপনাকে সাময়িক যৌন উত্তেজক মেডিসিনের পরিবর্তে স্থায়ী ও প্বার্শপ্রতিক্রিয়াহীন যৌন সমাধানের পরামর্শ দিবেন।

নোটঃ বর্তমানে প্রতিটি যুবক নিজেকে যৌন দূর্বল মনে করে,আর এই মনে করা থেকেই ব্যাপক ব্যবহৃত হচ্ছে মরণঘাতী ও স্থায়ী ক্ষতিকারক “সাময়িক যৌন উত্তেজক” মেডিসিন এবং আমাদের কাছে থেকে যাচ্ছে এধরনের মৃত্যুর রহস্য গুলো।

লেখাটি সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত মতামত, কারো কারো দ্বিমত থাকতেও পারে।

লেখকঃ

ডাঃ মুহাম্মদ ওমর ফারুক(হোমিওপ্যাথ)
ফরিদ ম্যানশনের নিচ তলা।
টিএন্ডটি অফিসের প্রায় ২০০গজ পশ্চিমে,

কেজি স্কুল রোডের মাথায়।
আলোর ঘাট রোড।লোহাগাড়া,চট্টগ্রাম।
মোবাইল/ইমু-০১৮৭২-৫০৭৩৮০
mail dmof007@gmail.com

-Advertisement-
Recent  
Popular  

Our Facebook Page

-Advertisement-
-Advertisement-