• মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৭:৪৪ পূর্বাহ্ন
Headline
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ভিত্তিক প্রতিভা অন্বেষণ করছে কক্সবাজার সাহিত্য একাডেমী জাহাজ মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদকের পিতার মৃত্যু, তোফায়েল আহমেদের শোক টেকনাফে মাদক কারবারি ভুট্টুর পা কেটে হত্যা কুতুবদিয়া বড়ঘোপ ৪নং ওয়ার্ড আ. লীগের কমিটি অনুমোদন, সভাপতি কামাল, সম্পাদক আব্দুস সাত্তার লোহাগাড়ায় বেড়াতে এসে পুকুরে ডুবে হেফজ বিভাগের ছাত্রের মৃত্যু ভারী যানবাহন চলাচলে ঝুঁকিপূর্ণ বদরমোকাম! কক্সবাজার সমুদ্র সৈকত থেকে নিখোঁজ লোহাগাড়ার যুবকের মরদেহ মহেশখালীতে উদ্ধার লোহাগাড়ায় পুলিশের হাতের কব্জি কেটে নিল আসামী! রামুতে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রকৌশলীর মৃত্যু কুতুবদিয়ায় দেশীয় অস্ত্রসহ আ’লীগ নেতা গ্রেপ্তার

কুতুবদিয়ায় জাল টাকা তৈরি মূলহোতা মিজানসহ তিন সহযোগী রিমান্ডে

Reporter Name / ৮২ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ৩১ মার্চ, ২০২২

শাহেদুল ইসলাম মনির, কুতুবদিয়া:

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় উপজেলা গেইটের সামনে রাবেয়া এন্টারপ্রাইজ নামক কম্পিউটার দোকান থেকে র‌্যাব-৭ অভিযানে ১৬ লাখ জাল টাকা উদ্ধারের ঘটনায় গ্রেফতার মূলহোতা মিজানসহ বাকী তিন সহযোগীকে ৩ দিনের রিমান্ডে দিয়েছে আদালত।

রিমান্ডে যাওয়া আসামিরা হলেন, বড়ঘোপ ইউপির মনোহরখালী এলাকার হাফেজ শহীদ উল্ল্যাহর ছেলে জাল টাকা তৈরীর সিন্ডিকেটের মূলহোতা সাঈফ উদ্দিন আহম্মদ প্রঃ মিজান (২৫), এবং তার দুই ভাই সহযোগী উপজেলা পরিষদের সচিব মেজবাহ উদ্দিন আহম্মদ (৩২), মোঃজিয়া উদ্দিন (২১)সহ কৈয়ারবিল ইউপির নজর আলী মাতবর পাড়া এলাকার ওমর আলী ছেলে সাইফুল ইসলাম (২২)।

বুধবার (৩০ মার্চ ) তাদের কুতুবদিয়া আদালতে হাজির করে পুলিশ। এসময় কুতুবদিয়া থানায় করা মামলার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য ৫ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সাইদীন নাহী ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদিকে,র‌্যাব-৭ দেওয়া ভিডিও সংবাদ সম্মেলন ও ফেসবুক পেইজে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়েছে, ধৃত ০১ নং আসামী মোঃ ছাইফুদ্দীন আহাম্মদ (মিজান) এই অবৈধ জাল নোট সিন্ডিকেটের মূলহোতা ও ০২ নং আসামী সাইফুল ইসলাম কম্পিউটার বা ল্যাপটপে জাল টাকা গুলো প্রস্তুত করে কালার প্রিন্টারে প্রিন্ট করতো, ০৩ নং আসামী মিসবাহ্ উদ্দিন জাল টাকাগুলো দেশের বিভিন্ন জেলায় আসল টাকা হিসেবে তাদের চক্রের নির্ধারিত লোকের মাধ্যমে চালানোর ব্যবস্থা গ্রহন করতো এবং ০৪ নং আসামী মোঃ জিয়াউদ্দিন জাল টাকা প্রস্তুতকালীন সময়ে বর্ণিত স্থানে দোকানের দরজায় পাহাড়ায় নিয়োজিত থাকতো উল্লেখ করা হলেও। কিন্তু এজাহারে বর্ণনায় বলা হচ্ছে অন্য কথা, ০৩ নং আসামী মিসবাহ্ উদ্দিনকে ৪নং আসামী এবং জাল টাকা প্রস্তুতকালীন সময়ে বর্ণিত স্থানে দোকানের দরজায় পাহাড়ায় নিয়োজিত থাকতো বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়া, র‌্যাবের বর্ণনায় মোঃ জিয়াউদ্দিন পাহাড়ায় নিয়োজিত থাকতো উল্লেখ করা হয়েছে এবং এজাহারে ০৪ নং আসামী থেকে ৩নং আসামি হিসেবে পরিবর্তনও করা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category