• মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ১১:১৯ পূর্বাহ্ন

কুতুবদিয়ায় মধ্যযুগীয় কায়দায় গৃহবধুকে নির্যাতনের অভিযোগ!

শাহেদুল ইসলাম মনির, কুতুবদিয়া: / ১২৮ Time View
Update : শনিবার, ৮ জানুয়ারী, ২০২২

কক্সবাজারের কুতুবদিয়ায় মধ্যযুগীয় কায়দায় গৃহবধুকে নির্যাতনসহ হত্যা করার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। গত ৬ জানুয়ারি দিবাগত রাতে কুতুবদিয়া দক্ষিণ ধূরুং ইউনিয়নের বদলা পাড়ায় এ ঘটনাটি ঘটে।

নির্যাতিত গৃহবধু সালেহা আক্তার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের পরান সিকদার পাড়ার মো. রশিদ আহমদের মেয়ে দক্ষিণ ধুরুং বদলা পাড়া এলাকার রজি উল্লাহর স্ত্রী।

অভিযুক্ত রজি উল্লাহ প্রকাশ দাতেঁর ডাক্তার রজি উল্লাহ রজি দক্ষিণ ধুরুং বদলা পাড়া এলাকার শামসুল আলমের ছেলে।

ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ধূরুং ইউনিয়নের বদলা পাড়া নিবাসী শামসুল আলমের পুত্র রজি উল্লাহ প্রকাশ দাতেঁর ডাক্তার রজি উল্লাহ রজি বাড়িতে।

নির্যাতিত গৃহবধু সালেহা জানান, তার স্বামী রজি উল্লাহ রুনা আক্তার নামের এক নারীর সাথে দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়ে। তখন থেকেই বিভিন্ন অজুহাত ধরে সালেহা বেগমকে শারীরিক, মানসিক নির্যাতন করে আসছে। ঘটনারদিন রাতে প্রেমিকার বাড়ি থেকে আসার কারণ জানতে চাওয়ার সাথে সাথে ক্ষিপ্ত হয়ে হত‍্যার উদ্দেশ্য গলা চিপে ধরে ও লোহার রড দিয়ে অমানবিক শারিরিক নির্যাতন করে। এমনকি জোরপূর্বক ষ্ট্যাম্পে সই ও তালাকনামায় স্বাক্ষর নিয়ে নেয়। একপর্যায়ে অচেতন হয়ে পড়লে মৃত্যু নিশ্চিত মনেকরে ছোট ছেলে রায়ান (৪) কে নিয়ে পালিয়ে যায়। শুক্রবার সকালে জ্ঞান ফিরে আসার পর বাপের বাড়িতে খবর দিলে বাবাসহ আসপাশের লোকজন এসে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

তাদের দাম্পত্য জীবনে দুই সন্তান রয়েছে। প্রথম সন্তান রাজিম চট্টগ্রাম সরকারি মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র ও ছোট সন্তান রায়ান (০৪)।

এঘটনায় সালেহা বেগমের পিতা মো. আব্দুর রশিদ জানান, কৈয়ারবিল ইউপির চেয়ারম্যান আজমগীর মাতবরকে ঘটনা অবহিত করার পর মূমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করি। মেয়েকে নিয়ে হাসাপাতালে ব্যস্ত ছিলাম। তাই অভিযোগ বা মামলা করতে পারি নাই। তবে এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত এবং সুষ্ঠু বিচার দাবী করেন তিনি।

ঘটনার খবর পেয়ে শনিবার বিকালে কৈয়ারবিল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজমগীর মাতবর, মহিলা সদস্য রওশন আরা, হাছিনা আকতার, সাধারণ সদস্য শাহনেওয়াজ নির্যাতিত গৃহবধু সালেহা বেগমকে কুতুবদিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার খোঁজ খবর নিতে দেখতে যান।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত রজিউল্লাহ রজি সাথে এ বিষয়ে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি পারিবারিক বিষয় বলে ফোন কেটে দেন।

কুতুবদিয়া থানার ওসি ওমর হায়দারেরর কাছ থেকে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, স্ত্রীকে নির্যাতনের বিষয়ে কেউ অবগত করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে অভিযুক্তের ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category