• সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ১১:৫৭ অপরাহ্ন
Headline
নাইক্ষ্যংছড়ি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও দোয়া অনুষ্ঠান লোহাগাড়া প্রিমিয়ার লীগের চতুর্থ খেলায় ১ গোলে মোহামেডানের জয় লোহাগাড়ায় ১ চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ৭ জনের মনোনয়ন বাতিল মগনামার ১ নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য নির্বাচিত হলেন জনতার নেতা নজরুল ইসলাম জামিনে কারামুক্ত হলেন সাংবাদিক ইমাম খাইর কুতুবদিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শনে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব হেলাল উদ্দিন সাতকানিয়া মহিলা কলেজে বিদায় ও নবীন বরণ  লোহাগাড়া প্রিমিয়ার লীগের দ্বিতীয় খেলায় মোহামেডাম ২, মুক্তিযোদ্ধা ০ পুটিবিলা হযরত শাহ্ জালাল (রহ:) কিন্ডারগার্টেন এন্ড স্কুলে বিদায়, পুরস্কার বিতরণ ও মা সমাবেশ কুতুবদিয়ায় ২ দোকানে অগ্নিকাণ্ড

চরম্বায় চলমান উন্নয়ন কর্মকান্ড অব্যাহত রাখতে মাস্টার শফিকে আবারো চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চাই এলাকাবাসী

Reporter Name / ৯৯ Time View
Update : শনিবার, ৬ নভেম্বর, ২০২১

জাহেদুল ইসলাম, লোহাগাড়া:

লোহাগাড়ার চরম্বা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাস্টার সফিকুর রহমান। উন্নয়ন চোখে দেখার মতো। খুশি এলাকাবাসীও। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে চরম্বা ইউনিয়ন পরিষদের সফল ও জনবান্ধব চেয়ারম্যান মাষ্টার শফিকুর রহমানের কোন বিকল্প নেই বলে মনে করছেন সচেতন মহল। তাই মাষ্টার শফিকুর রহমান চেয়ারম্যানকে আবারো চেয়ারম্যান হিসেবে পেতে চাই চরম্বার জনসাধারণ।

চরম্বায় গত ৫ বছর সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করে পুরো উপজেলায় সফল চেয়ারম্যান হিসেবে সবার মুখে মুখে।

অপরদিকে, তিনি চরম্বা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। ২০১৬ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নৌকা প্রতীকে বিপুল ভোটে চেয়ারম্যান হিসেবে জয়লাভ করেন। সফলতার সাথে চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন এখনো ৷

একান্ত আলাপকালে চরম্বা ইউনিয়ন পরিষদের সফর চেয়ারম্যান মাষ্টার শফিকুর রহমান চেয়ারম্যান বলেন, স্থানীয় সংসদ সদস্য প্রফেসর ড.আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী এমপির ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় চরম্বা এলাকায় বেশ উন্নয়ন হয়েছে, যা দেখার মতো। কলাউজান-চরম্বা বিবিরবিলা সড়কে এলজিইডি গার্ডার ব্রিজ, বান্দরবান সড়ক বিভাগের আওতাধীন চরম্বা জামছড়ি ব্রিজ,টংকাবতী খালের উপর কলাউজান-রাজঘাটা সড়কে এলজিইডির গার্ডার ব্রিজ, গ্রামের প্রায় অধিকাংশ রাস্তায় আরসিসি ঢালাই, ইটের সােলিং, ৫ টি
পিআইও ব্রিজ, ঘনবসতি এলেকার ১৩ টি পুকুরের ঘাট নির্মাণ, ৪ টি কবরস্থানের বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ, ইউনিয়ন পরিষদের বাউন্ডারি ওয়াল নির্মাণ, ড্রেন, বেশ কয়েকটি কবরস্থান ও শ্বশান সড়ক মাটিদ্বারা উন্নয়ন, কালভার্ট, প্রত্যন্তঅঞ্চলে নতুনভাবে ১৫ টি মাটিররাস্তা তৈরী,গাইড ওয়াল নির্মাণ, ৩৫ টি গভীরনলকুপ স্থাপন, ২০ টি মাটির রাস্তার উন্নয়ন, বয়স্ক ভাতা, চরম্বায় ৪৭ পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর ঘর উপহার, ১৬ কিলোমিটার ব্রিকসলিং, প্রতিবন্ধী ভাতা,বিধবা ভাতা, মাতৃত্বকালীন ভাতা, ভিজিডির খাদ্য সহায়তা, স্যানিটারী, ল্যাট্রিন, মাদ্রাসা, স্কুল ও হাট-বাজারের উন্নয়ন, করােনাকালীন সময়ে নিজের অর্থায়নে খাদ্যসামগ্রী, চাল, নগদ টাকা, মাস্ক বিতরণসহ বিভিন্ন ধরনের উন্নয়ন কর্মকান্ড সম্পন্ন করেছি ।

স্থানীয়রা বলেন, ২০১৬ সালের আগে আরো অনেক চেয়ারম্যান দায়িত্ব পালন করেছেন। কিন্তু এর আগে কোন চেয়ারম্যানদের এতবেশী উন্নয়ন কর্মকান্ড করতে দেখা যায়নি। ধনী-দরিদ্র সব মানুষকেই আমাদের চেয়ারম্যান সমানভাবে দেখেন, তবে অসহায় ও অবহেলিত মানুষদের তিনি সবসময় সাহায্য সহযোগিতা করে থাকেন।

সরেজমিনে ইউনিয়নে ঘুরে দেখা যায়, চরম্বার প্রত্যন্তঅঞ্চলে রাস্তাঘাটের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। ইউনিয়নের অধিকাংশ জনসাধারণ বলেন,আমাদের ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাহেবের মন প্রাণ খুব ভাল। তিনি একজন উদার মনের মানুষ। তিনি গত ৫ বছর ধরে ইউনিয়নে সততার সাথে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। এলাকার সাধারণ ব্যবসায়ী মোঃ বেলাল সওদাগর বলেন, আমাদের চেয়ারম্যান সকল বিপদ আপদে পাশে থাকে এবং এলেকার অসহায় ও দরিদ্র মানুষকে সবসময় সাহায্য সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। আমরা মাষ্টার শফিকুর রহমান চেয়ারম্যানকে আবার চেয়ারম্যান হিসেবে পেতে চাই।

উন্নয়নের বিষয় নিয়ে চরম্বা ইউপি চেয়ারম্যান চেয়ারম্যান মাষ্টার শফিকুর রহমান বলেন, আমি কথায় নয়, বরং কাজে বিশ্বাসী। গত ৫ বছর আগে জনগণ আমাকে ভােট দিয়েছেন ইউনিয়নের উন্নয়ন মূলককাজ ও মানুষের পাশে থাকার জন্য। আমি আমার সাধ্যমত চেষ্টা করেছি। গত ৫ বছরে পাহাড়ী অঞ্চলসহ প্রত্যন্তগ্রামে প্রায় ১ হাজার পরিবারে বিদ্যুৎ সংযোগের ব্যবস্থা করে ইউনিয়নকে শতভাগ বৈদ্যুতিক এলেকায় রুপান্তর করেছি। সবকিছুর মালিক মহান আল্লাহ। যে কয়েক দিন বেঁচে আছি তত দিন যেন জনগনের পাশে থেকে ইউনিয়নের উন্নয়নমূলক কাজ করতে পারি এটিই আমার আশা। ভােট জনগণের হাতে,যাকে খুশি তাকে দিবে, তবে আমি ইউনিয়নের সর্বস্তরের মানুষের পাশে থেকে উপকারের চেষ্টা করছি। জনগণ আমার কথায় যাতে কষ্ট না পায় তার জন্য সার্বক্ষণিক চেষ্টা করেছি।

তিনি আরাে বলেন, আমি ২০১৬ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচন করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছি। আগামী নির্বাচনেও আমি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী এবং নৌকা প্রতীক পাওয়ার ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী। আগামী ইউপি নির্বাচনে জনগণের ভােটে পুনরায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে আমার ইউনিয়ন অসমাপ্ত কাজ বিশেষ করে রাস্তাঘাট, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও কৃষির ব্যাপক উন্নয়ন ঘটিয়ে আমার চরম্বা ইউনিয়নকে মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলবাে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category