• বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ০৮:৩২ পূর্বাহ্ন
Headline
চরম্বায় বিষপানে গৃহবধূর আত্মহত্যা জয়নুল আবেদীন জনু চেয়ারম্যানকে আবারো চেয়ারম্যান হিসেবে চাই চুনতির জনগণ ব্যাংকিং সেবা সম্পর্কে জানেন না টেকনাফের নারী উদ্যোক্তারা পুটিবিলা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আসতে পারে চমক! পেকুয়ার ৬ ইউপিতে নৌকার মনোনয়ন পেলেন যারা মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনায় তিন আসামির ২ দিনের রিমান্ড চকরিয়ায় পুজামন্ডপ পাহারা দেয়া যুবলীগ নেতাসহ মামলার আসামী ৩৬ জন টেকনাফের যুবকরা মাদক ও বাল্য বিবাহের ঝুঁকিতেঃ দরকার সম্মিলিত প্রচেষ্টা বালুখালীতে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ১৪৪ পরিবারকে ইপসার অর্থ সহায়তা ও প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ লোহাগাড়ায় পিতার সাথে অভিমান করে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যা

আলীকদমে র‌্যাবের অভিযানে মাটির নিচ থেকে ৫ লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার: আটক ২

Reporter Name / ১২৬ Time View
Update : শনিবার, ২ অক্টোবর, ২০২১

আলীকদম সংবাদদাতা:

বান্দরবানের আলীকদমে আলোচিত রোহিঙ্গা পরিবার কবির হাজীর বাড়ির মেঝেতে মাটি নিচ থেকে ৫ লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে র‌্যাপিড একশান ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৭)।

গত বৃহস্পতিবার দিবাগত গভীর রাতে র‌্যাব সদস্যারা উপজেলার উত্তর পালং পাড়ায় কবির হাজীর বাড়িতে এ অভিযান চালান।

এ ব্যাপারে র‌্যাবের পক্ষ থেকে স্থানীয় সাংবাদিকদের কোন তথ্য দেওয়া না হলেও পুলিশ, স্থানীয় সূত্র ও প্রত্যক্ষর্শীরা জানান, র‌্যাবের অভিযানে ৫ লাখ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

অভিযানের সময় কবির হাজীর ছোট ছেলে মনির হোসেন এবং শফিউল্লাহ নামের বাড়ির কাজের ছেলেকে আটক করা হয়েছে।

আলীকদম থানার ওসি নাসির উদ্দিন জানান, সদস্যরা অভিযানের পর জব্দকৃত ইয়াবা ও আটককৃতদের নিয়ে থানায় আসেন। তবে জব্দকৃত ইয়াবা কিংবা আটককৃতদের থানায় হস্তান্তর করা হয়নি। ওদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য র‌্যাব নিয়ে যায়।

স্থানীয়দের অভিযোগ, হাজী কবির হাজী একজন চিহ্নিত রোহিঙ্গা নাগরিক।

২০০৮ সালের ভোটার তালিকায় উপজেলা ট্রাস্কফোর্স কমিটি তাকে রোহিঙ্গা লিডার হিসেবে শনাক্ত করায় ভোটার হতে পারেনি সে সময়। কিন্তু পরে পটিয়ায় তিনি ভোটার হন। এরপর আলীকদমের ভোটার তালিকায় তার নাম ট্রান্সফার করা হয়।

কবির হাজী রোহিঙ্গা লিডার হলেও স্থানীয়ভাবে প্রচুর অর্থবিত্ত ও জমির মালিক। কবির হাজী প্রথম সন্তান মোহাম্মদ আলী সৌদি প্রবাসী। তার বাকী ৩ সন্তান মোহাম্মদ নূর, মোহাম্মদ নবী ও মনির হোসেন ইয়াবা ব্যবসায়ে জড়িত।

এর আগে মোহাম্মদ নূর ও মোহাম্মদ নবী ইয়াবাসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটক হন। কিন্তু বারবার তারা আটক হয়েও অজ্ঞাতকারণে তারা জামিনও পেয়ে যায়। জামিনে এসে তারা পুনরায় ইয়াবা ব্যবসা চালিয়ে যায়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category