• বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১০:০৯ পূর্বাহ্ন
Headline
চরম্বায় বিষপানে গৃহবধূর আত্মহত্যা জয়নুল আবেদীন জনু চেয়ারম্যানকে আবারো চেয়ারম্যান হিসেবে চাই চুনতির জনগণ ব্যাংকিং সেবা সম্পর্কে জানেন না টেকনাফের নারী উদ্যোক্তারা পুটিবিলা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আসতে পারে চমক! পেকুয়ার ৬ ইউপিতে নৌকার মনোনয়ন পেলেন যারা মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনায় তিন আসামির ২ দিনের রিমান্ড চকরিয়ায় পুজামন্ডপ পাহারা দেয়া যুবলীগ নেতাসহ মামলার আসামী ৩৬ জন টেকনাফের যুবকরা মাদক ও বাল্য বিবাহের ঝুঁকিতেঃ দরকার সম্মিলিত প্রচেষ্টা বালুখালীতে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ১৪৪ পরিবারকে ইপসার অর্থ সহায়তা ও প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ লোহাগাড়ায় পিতার সাথে অভিমান করে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীর আত্মহত্যা

নাইক্ষ্যংছড়িতে অসহায় ব্যক্তির জায়গা জবর দখলের চেষ্টার অভিযোগ, আহত ৩

আবদুর রশিদ, নাইক্ষ্যছড়ি / ১৯০ Time View
Update : শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে অসহায় সিএনজি চালক জাফর আলম (৫১) এর জায়গা জবর দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সে নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ২নং ওয়ার্ড দক্ষিণ বিছামারা এলাকার মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে।

এ ঘটনায় জাফর আলম(৫২), স্ত্রী সালেহা আক্তার (৩১) ও মেয়ে জোবাইদা আক্তার (১৫) গুরুতর আহত হয়েছেন।

১৭ সেপ্টেম্বর ৬ জনকে বিবাদী করে জাফর আলম নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

বিবাদীরা হলেন, নাইক্ষ্যংছড়ি দক্ষিণ বিছামার এলাকার মৃত গুরামিয়ার ছেলে মোঃ হাসেম (৫০), তার ছেলে মোঃ আবদুল্লাহ (২৬), নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়ন ধুয়রী হেডম্যানপাড়া ১নং ওয়ার্ড এলাকার মৃত মাংনাই মার্মার ছেলে উপােসা মার্মা (৫৫), ক্যানু মার্মা (৪৬), ওয়াই মার্মা (৪৮) ও মংমং মার্মা (৩৫)সহ অজ্ঞাত আরো ১৫-২০ জন।

অভিযোগে প্রকাশ, জাফর আলম ২০১২ সনে হ্লাচিং উ মগিনী গং হতে ২.৩৬ শতক জমি ক্রয় করে শান্তিপূর্নভাবে ভোগ দখলে আছে। ঘটনারদিন ১৭ সেপ্টেম্বর সকালে বিবাদীরা পূর্বপরিকল্পীত ভাবে জোর করে ঘেরা বেড়া দিতে থাকে। এতে বাঁধা দিলে বাদী জাফর আএমকে মারধর শুরু করে। তার চিৎকারে স্ত্রী ও মেয়ে এগিয়ে আসলে তাদেরও মারধর করে। একপার্যায়ে মেয়ে জোবাইদা আক্তার (১৫) গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে বিবাদীরা পালিয়ে যায়।

ভুক্তভোগী জাফর আলম বলেন, আমার ক্রয়কৃত জমি বিবাদীরা জোরপূর্বক জবর দখল করলে বাঁধা দিলে আমাকে মারধর করলে আমার স্ত্রী ও মেয়ে এগিয়ে আসলে তাদেরও মরধর করে। আশপাশের লোকজন আমাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসা সেবা গ্রহন করি।

তিনি আরো বলেন, আমি এবং আমার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি। যেকোন মুহুর্তে আমার পরিবারের উপর জুলম নির্যাতন ও ক্রয়কৃত জায়গা দখল করে নিতে পারে। তিনি প্রশাসনসহ সর্বমহলের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এদিকে, অভিযুক্ত ক্যানু মার্মার কাছ থেকে জানতে চাইলে তিনি জানান উক্ত জমি আমরাও ক্রয় করেছি যার কারণে দখল ঘিরা বেড়া চেষ্টা চালাচ্ছি।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ওসি মো. আলমগীর হোসেন বলেন, জায়গা-জমি বিরোধ সংক্রান্তে মারামারির ঘটনায় উভয় পক্ষ অভিযোগ দায়ের করেছেন। বিষয়টি তদন্ত পুর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করবে বলেও জানান তিনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category